বিশ্বব্যাপী ভয় আর আতঙ্ক ছড়াচ্ছে করোনাভাইরাস। কিন্তু তাতেও যেনো কিছু মানুষের পোয়াবারো। নীলছবির দুনিয়ায় করোনাকে পুঁজি করে চলছে রমরমা ব্যবসা। করোনাভাইরাস ট্রেন্ডে তৈরি করা পর্নোগ্রাফি ছড়িয়ে পড়ছে নেট দুনিয়ায়। মানুষের এই বিকৃত রুচিবোধকে ‘ভয়াবহ’ উল্লেখ করে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক কিছু গণমাধ্যম।

বিশ্বব্যাপী আলোচিত ও সমালোচিত গণমাধ্যম ভাইসের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, গত কয়েকদিনে ইন্টারনেটে করোনাভাইরাস রোগীদের বেশে তৈরি করা পর্নোগ্রাফি সার্চ লিস্টের শীর্ষে অবস্থান করছে। এমনকি শীর্ষ কিছু এডাল্ট সাইট করোনা আক্রান্ত অঞ্চলগুলোয় প্রিমিয়াম একাউন্ট ফ্রিতে খোলার সুযোগ করে দিয়েছে বলে জানাচ্ছে তারা বলে জানিয়েছে।

একই ইস্যুতে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ডেইলি মেইলও। তারা বলছে, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে এই ধরনের ভিডিও। এমন মহামারীর সময়ে মানুষের বিচিত্র রুচিবোধ ভাবিয়েছে সমাজবিজ্ঞানীদেরও।

অবশ্য এডাল্ট ওয়েবসাইটগুলো দাবি করেছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ও তাদের স্বজনদের প্রতি সম্পূর্ণ সহমর্মিতা রয়েছে তাদের। উপদ্রুত অঞ্চলের মুষড়ে পড়া মানুষকে হাঁফ ছেড়ে বাঁচার সুযোগ দিতেই এই উদ্যোগ নিয়েছে তারা। এসব যুক্তি যে ধোপে টিকছে না, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

মনস্তত্ববিদরা বলছেন, যে সব মানুষ ছায়াকে ভয় তাদের একটা বড় অংশ হরর সিনেমার প্রতি আকৃষ্ট। এক্ষেত্রেও তেমনটি হয়ে থাকতে পারে। ভীতিই এক ধরনের আকর্ষণ তৈরি করে। যা কাজে লাগিয়ে রমরমা ব্যবসা করছে কিছু বিকৃত রুচির মানুষ।