অনেকে মনে করে মুখের ব্রণ অতিরিক্ত ভাজা পোড়া খাওয়ার জন্য বা ভাল ঘুম না হওয়ার জন্য হয় কিন্তু এটি সঠিক ধারণা নয়। অনেক সময় সব কিছু নিয়ম মাফিক করার পরও মুখে ব্রণ হয়। নানা ধরনের ক্রিম বা ফেসওয়াশ ব্যবহার করার পরও এই ব্রণ ভাল হতে চায় না। অনেক সময় ঠিক হয়ে গেলেও থেকে যায় বিশ্রী কাল দাগ যা আমাদের মুখের লাবন্য কে নষ্ট করে।

আপনি এযাবৎ হয়তো অনেক কিছু করেছেন এই মুখের ব্রণের জন্য, যা কোন কাজে দেয় নি, তাই আজকে আমি আপনাদের সাথে সেই ঘরোয়া উপায় শেয়ার করতে চাই, যা নিয়মিত ব্যবহার করলে আপনার মুখের ব্রণ এক সপ্তাহে দূর হয়ে যাবে। দেখুন কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে মুখের ব্রণ দূর করবেন-

ঘরোয়া উপায়ে মুখের ব্রণ দূর করার উপায়ঃ

উপাদানসমূহঃ গমের আটা, চালের আটা, গোলাপজল, অ্যালোভেরা জেল, নিমপাতা

১. প্রতিদিন সকালে মুখটি ভাল মত পরিষ্কার করতে হবে, এর জন্য কোন সাবান বা ফেসওয়াস ব্যবহার করা যাবে না। এক চা চামচ গমের আটার সাথে এক চা চামচ চালের আটা নিয়ে, তার সাথে সামান্য গোলাপজল যোগ করে একটি পেষ্ট তৈরি করে নিতে হবে। এই পেষ্টটিকে পাঁচ মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখতে হবে, সামান্য টানটান অনুভব হলে, হালকা করে ম্যাসাজ করে, ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে ব্রনের উপর জোরে করে ম্যাসাজ করা যাবে না।

২. এরপর মুখের ব্রনের উপর এলোভেরা জেল লাগাতে হবে, সবথেকে ভাল ফলাফলের জন্য এলোভেরার পাতা থেকে জেল বের করে ব্যবহার করতে হবে। এবার ১০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এরপর মুখে কোন অয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে।

৩. প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ত্বকে নিম পাতা বেটে তাতে এক চিমটি হলুদ বাটা বা গুড়া যোগ করে একটি পেষ্ট তৈরি করতে হবে। এই পেষ্টটি কে দশ মিনিট মুখে লাগিয়ে রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।এরপর মুখে কোন অয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে। আর আপনার ত্বক যদি তৈলাক্ত হয় তাহলে কিছু না লাগালেও সমস্যা নেই।

মুখে ব্রন থাকাকালীন কোন ধরনের মেকআপ লাগানো যাবে না, এতে ব্রন আরও বেড়ে যেতে পারে। এই ভাবে ২ থেকে ৩ দিন উপরের নিয়মগুলি অনুসরণ করলে মুখের ব্রন কমতে শুরু করবে, কিন্তু তাই বলে মুখ পরিষ্কার করা বা এলোভেরা জেল লাগানো বন্ধ করা যাবে না, এক সপ্তাহ ধরে নিয়মিত করতে থাকতে হবে।