২০১৮ সালে বলিউডে #মিটু ঝড় উঠে তনুশ্রী দত্তের যৌন হেনস্থার অভিযোগের পর থেকে। তনুশ্রী মুখ খোলার পর থেকে একে একে বেড়িয়ে আসে বলিউডের নায়িকাদের সাথে ঘটে যাওয়া সব যৌন হেনস্থার কাহিনি। সবার মুখে তখন শুধুমাত্র একটি নাম আর তা হল তনুশ্রী দত্ত।বলিউডের বড় অংশ তার সাহসিকতার প্রশংসা করেন ও তার সাথে তার এই লড়াইয়ে যোগ দেন।

২০০৮ সালে হর্ন ওকে প্লিজ ছবির সেটে তিনি নানা পাটেকরের দ্বারা হেনস্থার শিকার হন।তনুশ্রীও প্রকাশ্যে প্রতিবাদ করেন গতবছর। যেখানে বলিউডের বড় বড় অভিনেতা ও অভিনেত্রিরা তার পক্ষ থেকে কথা বলে, ঠিক সেই সময়ে আইটেম গার্ল রাখি সবন্ত তনুশ্রীর বিরুদ্ধে কথা বলেছেন। সেই সময় রাখি প্রকাশ্যে বিভিন্ন সময় তনুশ্রীর বিরুদ্ধে বক্তব্য দেন, যার ফলে ১০ কোটি টাকার মানহানি মামলা করেন তনুশ্রী।

তার পরিপ্রেক্ষিতে তনুশ্রীর বিরুদ্ধে রাখি ধর্ষণ করার অভিযোগ করে বলেন, ১২ বছর আগে তনুশ্রী আমাকে একাধিক বার ধর্ষণ করেছে। ১২ বছর আগে তনুশ্রীর সাথে রাখির ভাল বন্ধুত্ব ছিল। রাখির ভাষ্যমতে, তনুশ্রী আমার প্রিয় বন্ধু ছিল।তখন বিভিন্ন পার্টিতে আমরা একসাথে যেতাম। তনুশ্রী তখন একজন উচ্চ পর্যায়ের ড্রাগ আডিক্ট ছিল। সে পার্টিতে প্রচুর নেশা করতো ও আমাকেও নেশা করতে বলত। সেই সময় সে আমার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় খারাপভাবে হাত দিত ও একাধিক বার ধর্ষণও করেছে।

রাখি তনুশ্রীর বিরুদ্ধে ৫০ কোটি টাকের মানহানির মামলা করেন। মুম্বাইতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি তার সকল ঘটনা তুলে ধরেন। তিনি আরও বলেন যে বলিউডে অনেক সমকামী রয়েছে ও তনুশ্রীও তার একজন।