ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলায় ঘটনার পর নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন ও সমগ্র নিউজিল্যান্ডবাসী যা করছেন তার প্রশংসা এখন বিশ্বজুড়ে। তারা মুসলিম ধর্মের অনুসারী না হয়েও হামলায় নিহত মুসল্লিদের পরিবারের জন্য যা করেছেন তা বিশ্বকে অবাক করেছে। তাদের গুণগানের চর্চা এখন সকল সামাজিক মাধ্যমে।

নিউজিল্যান্ডের মহিলারা হামলায় নিহত মুসল্লিদের সন্মান দেখিয়ে মাথায় হিজাব পরা শুরু করছেন, এই তালিকা থেকে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্নও বাদ পড়েননি। এছারাও হামলায় নিহতদের শ্রদ্ধা জানাতে গত শুক্রবারে ২ মিনিট নীরবতা পালন করা হয় ও আল নূর মসজিদ থেকে সরাসরি নামাজ রেডিও ও টেলিভিশনে সম্প্রচার করা হয়।

এতসব কিছু করার পর তসলিমা নাসরিন তাদের নিয়ে যা বললেন তা আসলে এক কথায় কুটুক্তিই বলা চলে। তার মতে নিউজিল্যান্ডের মহিলারা নিহতদের শ্রদ্ধা জানাতে মাথায় হিজাব পরছেন কিন্তু তা আবার পা বের করে রেখে, যা ইসলামে গ্রহণীয় নয়। যা মুসলিমরা ঘৃণা করেন। তিনি বলেন যে নিহতদের শ্রদ্ধা জানানোর আরও অনেক উপায় ছিল, তাদের করা এই কাজটি মোটেও ভাল উপায় নয়।

তিনি আরও বলেন যে, নিউজিল্যান্ডের মহিলারা তাদের তর্জনী দিয়ে এক দেখিয়ে কি প্রকাশ করতে চাচ্ছেন। তারা যা দেখাচ্ছেন তার মানে আল্লাহ্‌ এক, তারা কি সত্যিকার অর্থে তা মানেন। এই চিহ্নতো আইএসআইএসের। আইএসআইএস এই চিহ্নতো মানুষ খুন করার সময় দেখায়।

নিউজিল্যান্ডে হামলার ভিডিও কেন সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে ফেসবুক থেকে – বিস্তারিত জানতে লিঙ্কে ক্লিক করুন।