প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের ছেলেকে হ’ত্যা করেছে বাবা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে এক পিতা তার নিজের ছেলেকে গলা কেটে হত্যা করেছে। এই নিষ্ঠুর পিতার নাম মোসাঈদ(৪০)। সে তার নিজ হাতে প্রথমে তার ছেলের শ্বাসরোধ করে ও পরে তার গলাও কেটে দেয়। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটে গত ২৮ শে জুলাই, রবিবার।

ঘটনাটি ঘটে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার ধরমণ্ডল গ্রামে। ঐ দিন রাত ৯ টায় মোসাঈদ তার ছেলে মোরসালিনকে (১০) নিয়ে বের হয়ে যায়। এরপর সে তার ছেলের প্রথমে শ্বাসরোধ করে ও পরে একটি ধারালো ব্লেড দিয়ে তার গলা কেটে পালিয়ে যায়। পালিয়ে যাওয়ার সময় সে গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়ে। বর্তমানে সে পুলিশ হেফাজতে আছে। তার জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

নাসিরনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সাজেদুর রহমান জানান মোসাঈদ একজন মাদকাসক্ত ব্যক্তি ছিল ও সে নাকি স্বীকার করেছে যে, প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই সে এই জঘন্য অপরাধটি করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে মোসাঈদের দুইবার বিয়ে হয়। অর্থাৎ তার দুইটি বউ। আর মোরসালিন তার প্রথম বউয়ের সন্তান। মোসাঈদ তার দ্বিতীয় বিয়ের পর থেকেই তার প্রথম স্ত্রী ও সন্তানদের দেখতে পারত না ও তাদের সাথে যোগাযোগও বন্ধ করে দেয়।ঘটনার দিন হঠাৎ করে মোসাঈদ তার প্রথম স্ত্রীর বাড়িতে যান এবং সেই নাকি মোরসালিনকে তার সাথে থাকা ৪০ টাকার মধ্যে থেকে দোকান থেকে একটি ব্লেড ও সিগারেট নিয়ে আসতে বলে। ঘটনার ২ দিন আগে মোরসালিন ফুটবল খেলে ৪০ টাকা জেতে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মোরসালিন দোকানের উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার কিছুক্ষ্ণ পরেই মোসাঈদও তার পিছু পিছু যায় ও ঘটনাটি ঘটায়। আর সেটি নাকি সে তার প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর জন্য করেছে, এই বলে সে তার হত্যার দায় স্বীকার করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে , মোরসালিন খুব মেধাবী ছাত্র ছিল। সে পঞ্চম শ্রেনীতে পড়ত। সে তার জেতা ৪০ টাকা দিয়ে স্কুলের ফি দিতে চাইলে মোসাঈদ তাকে গালাগাল করে ও পড়ে তাকে ঐ টাকা দিয়ে ব্লেড ও সিগারেট আনতে দোকানে পাঠায়

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।