কমবেশি সব বয়সী নারীরা নিজেকে সাজাতে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন রকম প্রসাধনী সামগ্রী ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এসব প্রসাধনী অনেক সময় তাদের জন্য হতে পারে তাদের যৌন ক্ষমতা কমে যাওয়ার প্রধান কারণ। কিছু কিছু প্রসাধনীতে এমন কিছু রাসায়নিক উপাদান আছে যা নারীদের জন্য খুবই বিপজ্জনক হতে পারে৷

২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ার জর্জ ম্যাসন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের করা এক সমীক্ষা থেকে জানা গেছে যে, প্রসাধনীতে থাকা রাসায়নিক পদার্থ বা কেমিক্যাল মহিলাদের শরীরে উপস্থিত যৌন হরমোনকে বিভিন্ন ভাবে প্রভাবিত করে। ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সী মোট ১৪৩ জন নারীকে নিয়ে তারা তাদের এই গবেষণাটি করেন।

woman in pain with hands holding her crotch lower abdomen

প্রসাধনী সামগ্রী ব্যবহার করে থাকেন নারীদের প্রস্রাবে আলট্রা ভায়োলেট ফিল্টার, অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল প্রিজারভেটিভস, বিসফেনল এ, এবং ক্লোলোফেনলস পাওয়া যায়। এই সবগুলো মহিলাদের শরীরে উপস্থিত লুইটিনাইজিং হরমোন মাত্রা কমায় এবং ডিম্বাশয়ের উৎপাদিত প্রধান হরমোন ইস্ট্রজেনের মাত্রা বৃদ্ধি বাড়াই যা নারীদের জন্য ক্ষতিকর।

গবেষকরা আরও জানান যে কিছু কিছু প্রসাধনীর কেমিক্যালস স্তন ক্যানসারের মতো এস্ট্রোজেন-নির্ভর রোগগুলিকে প্রভাবিত করে। যার গবেষকরা বলছেন, প্রসাধন সামগ্রীগুলোতে কী কী রাসায়নিক দ্রব্য বা উপাদান থাকে তা প্রসাধনী কেনার আগে দেখে নেওয়া উচিত ও হারবাল প্রসাধনী ব্যাবহার করা উচিত।