যে ৪ টি কারণে আপনার পেটের ভুঁড়ি কমছে না

পেটের ভুঁড়ি কমানো খুব একটা সহজ কাজ নয়, আর এই কথাটি ৯৯% লোক, যারা এই সমস্যায় ভুগছেন তারা বিশ্বাস করেন। যাদের ওজন বেশি তারা অনেক সময় তাদের বাড়তি ওজন কমিয়ে ফেললেও পেটের ভুঁড়ি কমাতে পারে না আবার এমনও হয় যে ওজন নিয়ন্ত্রনে থাকার পরও পেটের ভুঁড়ি বাড়তে থাকে। পেটের ভুঁড়ি বা এই বাড়তি মেদ আসলে সবার এক কারণে হয় না, একেক জনের একেক কারণে এটি হয়ে থাকে। কিন্তু এই পেটের ভুঁড়ি বা মেদ আমাদের পারসনালিটিতে অনেক বড় ধরনের প্রভাব ফেলে।

পেটের ভুঁড়ি বা মেদ থাকলে আমাদের চেহারা যতই সুন্দর হোক না কেন, আমাদের কে বাস্তবিক অর্থে সুন্দর লাগে না। এমন কি যে কোন ধরনের পোশাক পরলে এই ভুঁড়ি বা মেদের জন্য আমাদের বেমানান লাগে। বেশির ভাগ মানুষ যারা এই সমস্যার ভুক্তভোগী তারা বলে থাকেন যে নানা চেষ্টা করার পরও তারা পেটের এই বাড়তি মেদ কমাতে পারছেন না। যেমনটি আমি আগেও বলেছি যে পেটের ভুঁড়ি বা এই বাড়তি মেদ আসলে সবার এক কারনে হয় না, একেক জনের একেক কারনে এটি হয়ে থাকে, ঠিক একই ভাবে একেক জনের একেক কারনে তা কমতে চায় না। আপনিও যদি এই সমস্যার ভুক্তভোগী হয়ে থাকেন তাহলে আর দেরী না করে, এখনই দেখে নিন সে কারনগুলো যার জন্য হয়তো আপনি এই বাড়তি মেদ থেকে নিস্তার পাচ্ছেন না।

ভুঁড়ি বা মেদ আসলে কেমন ধরনের তা না জানা

সবার প্রথমে যে কারণটি রয়েছে তা হল আপনি আসলে জানেন না যে আপনার ভুঁড়ি বা মেদ আসলে কেমন ধরনের। আপনি যদি মনে করে থাকেন যে কোন ধরনের পেটের মেদ কমানোর ব্যায়াম বা ডায়েট আপনার কাজে দিবে তাহলে আপনার ভুল মনে হয় কারণ যেকোন ধরনের ব্যায়াম বা ডায়েট সব ধরনের মেদে কাজ করে না। আপনাকে প্রথমে জানতে হবে যে আপনার কোন ধরনের মেদের সমস্যা তারপর আপনাকে সে অনুপাতে ব্যয়াম বা ডায়েট শুরু করতে হবে।

ডায়েট

সঠিক ডায়েট মেনে না চলা, এটি হচ্ছে দ্বিতীয় কারন।আপনি হয়তো ওজন কমানোর জন্য ডায়েট করেন। সেটিতে হয়তো আপনার ওজন কমতে থাকে কিন্তু পেটের এই বাড়তি মেদ কমছে না, তখন আপনি মনে করেন যে হয়তো ধীরে ধীরে এটিও কমে যাবে কিন্তু সত্যিকার অর্থে এটিও আপনার করা একটি ভুল, যার ফলে আপনার পেটের মেদ কমবে না। আপনি যখন দেখবেন যে কোন ডায়েট করে আপনি ফলাফল পাচ্ছেন না তাহলে তা বাদ দিয়ে নতুন কিছু শুরু করবেন, অই একই জিনিস নিয়ে পরে থাবেন না, এতে আপনার কোন লাভ হবে না।

অতিরিক্ত ব্যায়াম

বেশির ভাগ মানুষ ব্যায়ামের বিষয়ে যা করে তা হল একদিন অতিরিক্ত ব্যায়াম করে ফেলে আর তারপর ২ বা ১ দিন কোন ব্যায়াম করে না। তারা মনে করে হয়তো একসাথে বেশি করে ব্যায়াম করে ফেললে পরে ২ বা ১ দিন না করলেও চলবে কিন্তু তাদের এই ধারণাটি সম্পূর্ণ ভাবে ভুল। এতে পেটের মেদ মোটেও কমে না।পেটের মেদ কমাতে হলে, মেদের ধরন অনুসারে নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে।

অতিরিক্ত মানসিক চাপ

অতিরিক্ত মানসিক চাপ পেটের এই মেদ না কমার আরও একটি কারন। যারা সব সময় অতিরিক্ত মানসিক চাপে ভুগে তাদের শরীরের হরমোনের প্রভাবে এই মেদ কমতে চায় না। তাই যদি এই ভুঁড়ি বা মেদ কমাতে চান তাহলে অতিরিক্ত মানসিক চাপ নেওয়া বন্ধ করুন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।