যে ৪ ধরনের জুতা মেয়েদের পরিহার করা উচিত

আমরা সব সময় ফ্যাশানের সাথে তাল মিলিয়ে জুতা পরিধান করি, কিন্তু কখনো কি চিন্তা করি যে, আমরা যে ধরনের জুতা ব্যবহার করছি তা আসলে কতটা স্বাস্থ্যসম্মত। না আমরা কখনোই এই কথাটা চিন্তা করি না বরং হাল ফ্যাশানের সাথে তাল মিলিয়ে নতুন সব কিছু করতে চাই। একজন ব্যক্তি বছরে সাধারনত ২৪৫ – ২৯২ কিঃমিঃ হেঁটে থাকেন। সুতরাং আমরা যদি জুতার ব্যাপারে সচেতন না হই তাহলে এটির প্রভাব আমাদের স্বাস্থ্যের উপর বিরুপ ভাবে পরে যা আমরা বুঝতে পারি না। তাই সব সময় আমাদের এমন ধরনের জুতা ব্যাবহার করা উচিত যা হাল ফ্যাশানের হলেও স্বাস্থ্যসম্মত।

এখন কম বেশি সব মেয়ে এই ধরনের জুতা (১ ছবির মত) ব্যবহার করে থাকে। যাদের পা চওড়া বেশি তাদের এই ধরনের জুতা পরিহার করা উচিত। শুধুমাত্র ফ্যাশানের কথা চিন্তা করে এই ধরনের জুতা ব্যাবহার করতে যাবেন না যদি আপনার পা চওড়া বেশি হয়। যদি আপনার পা চওড়া হয় তাহলে এই ধরনের জুতা পরার ফলে আপনার পায়ের হাড় বাকিয়ে যেতে পারে, এছারাও নার্ভে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

এই ধরনের জুতা (২ ছবির মত) ছেলে মেয়ে উভয়েয় ব্যবহার করে থাকে। এই ধরনের জুতা পরে অনেকে সাচ্ছন্দ্য বোধ করলেও এই ধরনের জুতা স্বাস্থ্যসম্মত নয়। এই ধরনের জুতা অনেক দিন ধরে ব্যবহারের ফলে আপনার পায়ের হাড়ের মধ্যে ব্যবধান তৈরি করে। এই ধরনের জুতা পড়ে হাঁটলে আপনি তাড়াতাড়ি হাঁপিয়ে পরবেন ও ক্লান্ত বোধ করবেন।

এই ধরনের জুতা (৩ ছবির মত) সব থেকে বেশি ক্ষতিকর, এই ধরনে জুতা ব্যবহারে শুধুমাত্র যে আপনার পায়ের হাড় বাকিয়ে যায় তা নয় বরং আপনার নার্ভ সিস্টেমে সরাসরি ক্ষতি করে ও কোমরের ব্যথা সৃষ্টি করে।

এই ধরনের চটি (৪ ছবির মত) জুতা দীর্ঘদিন ব্যাবহারের ফলে পায়ের গোড়ালিতে নানা ধরনের সমস্যার সৃষ্টি করে। এর ফলে আপনার গোড়ালির হাড় ক্ষয় হতে থাকে ও প্রচন্ড ধরনের ব্যাথা হয়।